মোবাইলে কিভাবে বিপ একাউন্ট খুলবেন? | BiP আইডি খোলার নিয়ম ২০২১।

মোবাইলে বিপ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২১- 

ইমু ও হোয়াটসঅ্যাপ এর বিকল্প মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন। মোবাইলে কিভাবে বিপ একাউন্ট খুলবেন? | BiP আইওডি খোলার নিয়ম ২০২১।
How To Create BiP Account Bangla Tutorial.

স্মার্টফোনে ব্যবহার করার জন্য অনলাইনে অসংখ্য মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে। জনপ্রিয় কিছু মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশনের মধ্য থেকে আমরা সবাই কম-বেশি ইমু ও হোয়াটসঅ্যাপ সফটওয়্যার দুটি ব্যবহার করি।

কিন্তু ইমুতে ব্যবহারকারীর তথ্য ফাঁস হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাছাড়াও ইমুতে রয়েছে অহেতুক নোটিফিকেশন, অসামাজিক ছবি-ভিডিও ও অশ্লীল বিজ্ঞাপনের ছড়াছড়ি, যা ব্যবহারকারীকে তিক্ত স্বাদ এনে দিয়েছে।

এসব মাত্রাতিরিক্ত বিজ্ঞাপনের কারণে বিড়ম্ভনায় পড়তে হয় ইমু ব্যবহারকারীকে। অপর দিকে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি তাদের গোপনীয়তা-নীতি পরিবর্তন করার ঘোষণা দেওয়ার পর থেকে তাদের ব্যবহারকারীর সংখ্যা ক্রমশ কমতে চলেছে।

এমন সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হঠাৎ করেই আলোচনায় এসেছে ২০১৩ সালে তুরস্কের তৈরি বিপ বা BiP অ্যাপটি। মোবাইল ফোন কোম্পানি টার্কসেল উদ্ভাবন করে ‘বিপ’ অ্যাপটি।

দেশে দীর্ঘ দিন ধরে জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা ইমু ও হোয়াটসঅ্যাপ সহ অন্যান্য ম্যাসেজিং অ্যাপগুলোকে পেছনে ফেলে তালিকার শীর্ষে জায়গা করে নিচ্ছে এই ‘বিপ’ (BiP) অ্যাপটি।

অ্যাপটিতে অডিও-ভিডিও কল কিংবা মেসেজ আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীর গোপনীয়তা বজায় থাকবে এবং অন্য কেউ একাউন্ট হ্যাক করতে পারবে না।

এটি অন্যান্য অ্যাপের মতো ভিডিও কলিং ও ম্যাসেজিংয়ের মতোই কাজ করলেও বিশেষ কিছু সুযোগ সুবিধা রয়েছে। গুগল প্লেস্টোরে অ্যাপটির রেটিং পয়েন্ট হচ্ছে ৪.৫। আর মোট ডাউনলোডের সংখ্যা দ্রুত গতিতে বেড়েই চলেছে।

বিপ অ্যাপে ইমুর মতো কোনো বিজ্ঞাপন দেখানো হয়না। যেকোনো আইওএস চালিত আইফোন, অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল কিংবা ডেস্কটপে সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে সহজেই ব্যবহার করা যায়। ইউরোপের বিভিন্ন দেশসহ বিশ্বের ১৯২টি দেশের মানুষ এই অ্যাপটি ব্যবহার করছে।

অন্যান্য মেসেজিং অ্যাপস ব্যবহার করা বাদ দিয়ে কিংবা সেগুলো ব্যবহারের পাশাপাশি আপনি কেনো বিপ (Bip) অ্যাপটি ব্যবহার করবেন? এই অ্যাপের বিশেষ সুযোগ-সুবিধা কি কি? এসব প্রশ্নের উত্তর এখান থেকে জেনে নিন

আজকের এই পোষ্টটি থেকে চিত্র ও বর্ণনার মাধ্যমে আমরা জানতে চলেছি স্মার্টফোনে কিভাবে বিপ সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে একাউন্ট তৈরি করতে হয়।

মোবাইলে কিভাবে বিপ আইডি খুলতে হয়?

আইফোন ব্যবহারকারীরা এখান থেকে বিপ সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে ইনস্টল করে নিন। আর আপনি যদি এন্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তাহলে নিচের ডাউনলোড বাটন থেকে ডাউনলোড করে ইনস্টল করে নিন।

অ্যাপটি ওপেন করার পর পারমিশনগুলো এলাও করে দিবেন। বিপ একাউন্ট খুলতে নিচে দেওয়া ধাপগুলি অনুসরণ করুন।

ধাপ-০১ঃ  

অ্যাপটি ওপেন করলেই উপরের চিত্রের মতো 'Privacy Policy & Terms of Use' পেজ দেখাবে। সেখান থেকে উক্ত পেজটি 'CONTINUE' করে দিন।

ধাপ-০২ঃ ২য় ধাপে আপনাকে আপনার ফোন নাম্বার দিতে হবে।

বাম পাশ থেকে আপনার কান্ট্রি কোড বাছাই করে নিন। (বাংলাদেশের ক্ষেত্রে +৮৮০) আর ডান পাশে আপনার ফোন নাম্বারটি দিন।

আপনার নাম্বারের শুরুতে যে '০' শূন্য আছে তা অবশ্যই বাদ দিয়ে দিবেন। (যেমনঃ আপনার নাম্বারটি যদি হয় 016122173xx, তাহলে উক্ত ঘরে লিখবেন 16122173xx।) তারপর 'Get Verification Code' লেখায় ক্লিক করুন।

ধাপ-০৩ঃ পরের পেজে আপনার কাছে OTP (One Time Password) বা আপনার মোবাইল নাম্বারে পাঠানো পিন কোডটি চাওয়া হবে। পাঁচ সংখ্যার সেই কোডটি বসিয়ে দিন।

ধাপ-৪ঃ পরবর্তী পেজে আপনার নাম ও ছবি সেট করে Done করে দিন। পেজটি নিচের চিত্রের মতো দেখাবে।

নাম ও ছবি সেট করে 'Done' করার পর আপনার একাউন্টটি পুরোপুরিভাবে তৈরি করা হয়ে যাবে।

আর বিপ অ্যাপের বিভিন্ন টিপস এন্ড ট্রিকস পেতে আমাদের Tech Robin ওয়েবসাইটটিতে নিয়মিত চোখ রাখুন। ধন্যবাদ।

Post a Comment

0 Comments