বাহিরের দেশ থেকে বিধিমালা অনুযায়ি একজন যাত্রী বিনাশুল্কে যেসব পণ্য সাথে আনতে পারবেন।

বিদেশ ভ্রমণ অনেকের কাছের স্বপ্নের ন্যায়। দেশের গন্ডি ছাড়িয়ে বিদেশের মাটিতে বেড়ানোটা আনন্দদায়ক। স্বাদ লাভ করা যায় ভিন দেশের বিভিন্ন আচার, অনুষ্ঠান ও সংস্কৃতির।

দেশের বাইরে পা রাখতে আমাদের বিভিন্ন যানে করে ভ্রমণ করতে হয়। এর মধ্যে রয়েছে বিমানবন্দর, স্থল বা সমুদ্রবন্দর। এই মাধ্যমগুলো ব্যবহার করে আমরা যাওয়া-আসা ছাড়াও আমদানি-রপ্তানি প্রচলন চালু রয়েছে আমাদের দেশের সাথে বহু দেশের আবার, বহু দেশের সাথে আমাদের।

তবে আমরা ভ্রমণে নানান জায়গায় ঘুরে বেড়ালে ওই জায়গা থেকে টুকটাক পছন্দের জিনিস সচরাচর কিনে নেই। এ তাালিকায় থাকে হরেক রকমের পণ্য সামগ্রী।

বাহিরের দেশ থেকে বিধিমালা অনুযায়ি একজন যাত্রী বিনাশুল্কে যেসব পণ্য সাথে আনতে পারবেনঃ-

দেশের বাহির থেকে এসব প্রয়োজনীয় পণ্য বা জিনিস কিনে নিজ দেশে নিয়ে আসতে ছাড় করতে বেশ বেগ পোহাতে হয়। আবার, নিয়মের বেড়াজালে পরে কোনো কোনো দ্রব্য সামগ্রী বা পণ্য হাতছাড়া করতে হয়।

সুপ্রিয় পাঠক, আজ আমরা আলোচনা করবো নিয়মের মধ্যে বৈধ উপায়ে কতটা শুল্ক দিয়ে ও কিভাবে একদম শুল্কমুক্ত করে পণ্য সামগ্রী নিয়ে আসতে পারবেন তা নিয়ে।

আর এ তালিকায় প্রথমেই আপনাদের জানা দরকার কি কি পণ্য বৈধ উপায়ে সাথে করে আনতে পারবেন? আর কতটুকু আনতে পারবেন? কোন পণ্যের বা দ্রব্যের জন্য কাস্টমসকে কেমন শুল্ক দিতে হয়? আর কোনগুলো শুল্কমুক্ত? এসব নিয়েই সুবিধাদি আলোকপাত করবো।

→ পানি ও আকাশ পথে (বিধিমালা-২০১৬ অনুযায়ি) কেবল পর্যটক নয় এমন যাত্রী (সংখ্যা একটি করে) শুল্কমুক্ত যেসব দ্রব্যসামগ্রী নিজের সাথে করে বৈধ উপায়ে আনতে পারবেন তা হলো-

বাহিরের দেশ থেকে বিধিমালা অনুযায়ি একজন যাত্রী বিনাশুল্কে যেসব পণ্য সাথে আনতে পারবেনঃ-

* ১ কার্টন/২০০ শলাকা সিগারেট।

* স্বর্ণালংকার আনা যাবে ১০০ গ্রাম ওজনের ও রৌপ্য অলংকার বিনাশুল্কে ২০০ গ্রাম ওজনের। তবে একই অলংকার ১২টির বেশি সাথে করে আনা যাবে না।

* সর্বোচ্চ ১৫ বর্গমিটার আয়তনের কার্পেট।

* গৃহস্থালিতে ব্যবহারের সেলাই মেশিন (ম্যানুয়াল/ বৈদ্যুতিক)।

* রাইস কুকার,প্রেসার কুকার, গ্যাসওভেন (বার্নরাসহ)।

* ক্যাসেট প্লেয়ার/টু ইন ওয়ান।

* বহনযোগ্য অডিও সিডি, প্রিন্টার।

* ফ্যাক্স মেশিন।

* ডিস্কম্যান/ওয়াকম্যান (অডিও)।

* ডেস্কটপ/ল্যাপটপ কম্পিউটার (একটি ইউপিএসসহ)।

* কম্পিউটার স্ক্যানার।

* ভিডিও ক্যামেরা, এইচডি ক্যাম, ডিভিক্যাম, বেটা ক্যাম এবং প্রফেশনাল কাজে ব্যবহার হয় এমন ক্যামেরা ছাড়া অন্য যেকোনো ক্যামেরা।

* সাধারণ টেলিফোন সেট (পুশবাটন, কর্ডলেস)।

* টোস্টার, স্যান্ডউইচমেকার, ব্লেন্ডার,ফুড প্রসেসর, জুসার, কফি মেকার।

* ভিসিআর, ভিসিপি।

* সাধারণ ও বৈদ্যুতিক টাইপ রাইটার।

* (২৯ ইঞ্চি) পর্যন্ত প্লাজমা/এলসিডি/টিএফটি/

এলইডি বা এমন প্রযুক্তির টেলিভিশন এবং সিআরটি সাদাকালো/রঙ্গিন টেলিভিশন।

* সাধারণ ইলেকট্রনিক ও মাইক্রোয়েভ ওভেন।

* সাধারণ কিংবা দুইটা বা চারটি স্পিকারসহ সিডি/ভিসিডি/ডিভিডি/এমডি/ব্লুরে ডিস্ক প্লেয়ার ও সেট।

* দুইটি মোবাইল/সেলুলার ফোনসেট (স্মার্ট, অ্যান্ড্রয়েড, আইফোন যেকোন রকম/ব্রান্ডের হতে পারে)।

* ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য স্পোর্টস সরঞ্জাম।

* বাসায় ব্যবহারের জন্য টেবিল, প্যাডেস্টাল ও সিলিং ফ্যান।

তবে স্থলপথে একজন যাত্রী চাইলে ব্যাগেজ রুল অনুযায়ি একবারে সর্বোচ্চ ৪শ’ ডলারের পণ্য বিনাশুল্কে আনতে পারবেন। যা এই সুবিধা এক বছরে সর্বোচ্চ ৩ বার নিতে পারবেন।

তথ্য সংগ্রহ ও সংকলনে: মো. আজিজুর রহমান।

Post a Comment

0 Comments