পর্ণগ্রাফি আসক্তির ভয়াবহতা থেকে বাঁচার উপায়।

পর্ণ আসক্তির ভয়াবহতা থেকে বাঁচার উপায়ঃ- "উঠতি বয়সের ছেলে কার্তিক। বয়স তের কিংবা চৌদ্দ হবে। তার পরিবারের লোকজন একটি বিষয় লক্ষ্য করে তা হলো সে প্রায়ই রুমের দরজা-জানালা বন্ধ করে কম্পিউটারে কিছু একটা করে।

পর্ণগ্রাফি আসক্তির থেকে বাঁচার উপায়, পর্ণগ্রাফি থেকে বাঁচার উপায়, পর্ণগ্রাফি থেকে মুক্তির দোয়া, মাস্টারবেশন থেকে মুক্তির উপায়, পর্ণগ্রাফি কিভাবে তৈরি করা হয়,

কেউ কিছু জিজ্ঞেস করলে, গেম খেলার কথা বলে। আর কম্পিউটারের পাশাপাশি মাঝে মাঝে সবার আড়ালে সে তার ফোন নিয়েও ব্যস্ত থাকে।

কার্তিকের বাবা তার বিষয়টা জানার জন্য তার কম্পিউটার ও মোবাইল ফোন চেক করে। তারপর সে জানতে পারে তার ছেলে বেশ নিয়মিত পর্ণোগ্রাফি সাইট ভিজিট করে এবং পর্ণ Video দেখে।

তাছাড়াও সে তার কম্পিউটার ও মোবাইলে পর্ণোগ্রাফি Video ও পর্ণোগ্রাফি ছবি ডাউনলোড করে দেখে। তারপর তার বাবা তাকে পিটুনি দেয় এবং তাকে কম্পিউটার ও মোবাইল ব্যবহার করা বন্ধ করে দেয়।"

পর্ণগ্রাফি আসক্তি একটি মারাত্মক সমস্যা। এর সমাধান বকুনি কিংবা পিটুনি দিলেই হবেনা। কেবল মাত্র উঠতি বয়সের কিশোর-কিশোরীরাই নয়, অনেক প্রাপ্তবয়স্ক মানুষও পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত।

এই আসক্তি বিভিন্ন মানসিক ও শারিরীক রোগ জন্ম দেয়। প্রথম প্রথম কৌতূহলী হয়ে দেখা শুরু করলেও, এরপর দেখার জন্য আগ্রহ তৈরি হয়। আগ্রহ থেকে পরিনত হয় অভ্যাসে। আর অভ্যাস থেকেই আসক্তি।

পর্ণ আসক্তির কিছু ক্ষতিকর দিকসমূহঃ

✹ পর্ণ আসক্তি হলে মানুষের রূচিবোধের অবনতি হয়। পর্ণ ভিডিওতে অনৈতিক ও বিকৃত যৌনতা নিয়মিত দেখার ফলে রুচি বিকৃত হয়ে যায়।

✹ যারা নিয়মিত পর্ণ ভিডিও দেখে তারা বাস্তব জগৎ রেখে স্বপ্নের জগৎ এ চলে যায়। পর্ণ ভিডিওর মতো সঙ্গী তারা বাস্তব জীবনেও আশা করে। তখন সাধারণ সঙ্গী আর ভালো লাগে না। তারপর শুরু হয় সংসারে অশান্তি।

✹ পর্ণ ভিডিওতে আসক্ত পুরুষদের মধ্যে হস্ত মৈথুনের অভ্যাসটাও বেশি থাকে। আর অতিরিক্ত হস্ত মৈথুন করার ফলে বিভিন্ন যৌন সমস্যা দেখা দেয়।

✹ পর্ন আসক্তি অনেকটাই মাদকে আসক্তির মতোই। মাদকাশক্তি থেকে মুক্তি পাওয়া যেমন কষ্টসাধ্য ঠিক তেমনি পর্ণ আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়াও কষ্টসাধ্য। তবে চেষ্টা করলে অবশ্যই মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

✹ অত্যাধিক পর্ণ ভিডিও দেখা স্মৃতিশক্তির উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। যার ফলে পর্ণ আসক্তি ব্যক্তি খুব সহজেই অনেক কিছু ভুলে যেতে শুরু করে।

✹ পর্ণ ভিডিও ইভটিজিং, ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের জন্য পরোক্ষভাবে দায়ী।

✹ আমাদের ইসলাম ধর্মেও এসব দেখার বিষয়ে কঠোর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

পর্ণগ্রাফি থেকে বাঁচার উপায়ঃ-

✹ সবার আগে সংগ্রহে থাকা পর্ণ ভিডিওগুলো ডিলিট করে দিন। আর যদি কোনো ভিপিএন ব্যবহার করে পর্ণ ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেন তাহলে তাও আনস্টল করে দিন।

✹ পর্ণ ওয়েবসাইটগুলো ব্লক করে দিন। এক্ষেত্রে বিভিন্ন এপসের সাহায্য নিতে পারেন।

✹ পর্ন ভিডিও বা খারাপ ছবি বা অন্য কোনো খারাপ ভিডিও দেখতে ইচ্ছে হলে অন্যকোনো সখ বা বিনোদনের উৎস খুঁজে বের করুন। চাইলে গানও শুনতে পারেন অথবা ঘুরে আসতে পারেন বাহিরের মুক্ত পরিবেশ থেকে।

✹ পর্ন ভিডিও দেখতে ইচ্ছে হলে স্মার্টফোন ও কম্পিউটার থেকে দূরে অবস্থান করুন।

✹ ধর্মিও অনুশাসন মেনে চলুন। মুসলিম হলে নিয়মিত নামাজ পড়ুন। চাইলে রোযাও রাখতে পারেন।

✹ অপ্রয়োজনে নেট ব্রাউজিং কমিয়ে ফেলুন।

✹ পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের সাথে বেশি করে সময় কাটান।

✹ অত্যাধিক পর্ন আসক্তি হলে একবারে বেড়িয়ে আসা অসম্ভব। তাই ধীরে ধীরে বেড়িয়ে আসার চেষ্টা করুন।

✹ প্রয়োজনে ডাক্তারের কাছ থেকে মানসিক চিকিৎসা নিন।

Post a Comment

0 Comments